ঢাকা সোমবার, অক্টোবর ৩, ২০২২

Popular bangla online news portal

সান ফ্লাওয়ারে বীমা করে প্রতারিত কয়েক হাজার গ্রাহক


সংলাপ প্রতিনিধি
১৪:১২ - শুক্রবার, জুলাই ১, ২০২২
সান ফ্লাওয়ারে বীমা করে প্রতারিত কয়েক হাজার গ্রাহক

সাবেক বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী মেজর (অব:) আব্দুল মান্নান এমপির মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান সান ফ্লাওয়ার লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ‘আল আরাফা ইসলামী জীবন বীমা (তাকাফুল)’ প্রকল্পে বীমা করে প্রতারিত হয়েছেন নোয়াখালীর হাজার হাজার গ্রাহক।

বীমার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও চেক/টাকা না পেয়ে দফায় দফায় ‘সান ফ্লাওয়ার লাইফ ইন্সুরেন্স  কোম্পানি লিমিটেডের ‘আল আরাফা ইসলামী জীবন বীমা (তাকাফুল)’ নোয়াখালী সার্ভিস সেল কার্যালয়ে তালা দিয়েছে কয়েক হাজার ক্ষুব্ধ গ্রাহক।

সর্বশেষ বৃহস্পতিবার রাত ৯টা পর্যন্ত জেলা শহরের জিলা স্কুল সংলগ্ন ওই বীমা প্রতিষ্ঠানের কার্যলয় এবং কার্যলয়ের সামনে আবদুল মালেক উকিল সড়কে পাওনা চেক/টাকার বিক্ষোভ করে গ্রাহকরা। পরে সুধারাম থানার পুলিশের সহযোগিতায় কোম্পানির ডিএমডি মো. মিজানুর রহমান মিলন চেকপ্রাপ্ত কয়েকজন গ্রাহককে চেক প্রদান করেন।

বিক্ষুব্ধ গ্রাহকরা বলেন, গত ২০১৮ সালে বীমার মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পর নোয়াখালী কার্যালয়ে আসার পর তারা গ্রাহকদের ঢাকা প্রধান কার্যালয়ে চেকের জন্য পাঠান। কিন্তু প্রধান কার্যালয় থেকে চেক নিয়ে আসার পর থেকে এখন পর্যন্ত নোয়াখালী কার্যালয় থেকে টাকা নগদ করতে পারেনি তারা। চেক নিয়ে টাকার জন্য আসলে একেকদিন একেক ধরনের কথা বলে গ্রাহকদের হয়রানি করা হয়। শুধু ২০১৮ সাল নয়, এর পরবর্তী সময়ে যাদের বীমার মেয়াদ শেষ হয়েছে সেই গ্রাহকরাও এখনও টাকা পায়নি। ফলে বাধ্য হয়ে কার্যালয়ে তালা দিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা।

নোয়াখালী সার্ভিস সেল ইন-চার্জ, মোহাম্মদ মিলন বলেন, আমাদের অফিস স্থানান্তর হওয়ার গুজবে বীমা গ্রাহকরা ও সাধারণ পাবলিক জড়ো হয়ে এ অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। আমরা গ্রাহকদের সমস্ত পাওনা টাকা ঠিকমতো পরিশোধ করে যাচ্ছি।

সুধারাম মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান পাঠান জানান, প্রাধন কার্যালয় থেকে বীমা কোম্পানির কয়েকজন কর্মকর্তা পুলিশ প্রটোকলে এসেছেন। যেসকল গ্রাহককে ইতোমধ্যে চেক দেওয়া হয়েছে তাদের টাকা দিবে এবং অপর গ্রাহকদের চেক  দেওয়া হবে বলে কর্মকর্তারা পুলিশকে জানিয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ সর্তক অবস্থানে রয়েছে বলেও জানান তিনি।